বাংলার গেজেট আন্তজার্তিক ডেস্ক : আফগানিস্তানে শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৯২০ জনে দাঁড়িয়েছে। এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন দেশটির কর্মকর্তারা। এতে এখন পর্যন্ত ছয় শতাধিক মানুষের আহত হওয়ার পাওয়া গেছে।
আজ বুধবার (২২ জুন) ভোররাতে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে এ ভূকম্পন আঘাত হানে। খবর আল-জাজিরার।
দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা উপমন্ত্রী মাওলাউ শরাফুদ্দিন মুসলিম বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে যে তথ্য আছে তাতে ৯২০ জন মারা গেছেন ও ৬০০ জন আহত হয়েছেন।
এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা সালাহউদ্দিন আইয়ুবি জানিয়েছিলেন, দুর্গম পাহাড়ি এলাকার গ্রামগুলোতে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে ও সম্পূর্ণ তথ্য পেতে আরও সময় লাগবে।
আইয়ুবি জানিয়েছেন, আহতদের উদ্ধারে এবং খাবার ও জরুরি চিকিৎসা পণ্য পরিবহনে হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে।
মৃত্যুর বেশিরভাগই পূর্বাঞ্চলীয় পাকতিকা প্রদেশের। আফগানিস্তানের গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ভূমিকম্পের আঘাতে অনেক ঘরবাড়ি একেবারে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে এবং কম্বলে ঢাকা কিছু মরদেহ মাটিতে পড়ে আছে।
মানুষজন ঘুমিয়ে থাকার সময় আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্তে আঘাত হানে প্রবল এই ভূমিকম্প। পাকিস্তান আবহাওয়া অধিদপ্তরের ন্যাশনাল সিসমিক মনিটরিং সেন্টার এবং ইউরোপীয় ভূমধ্যসাগরীয় ভূকম্পন কেন্দ্র (ইএমএসসি) জানিয়েছে, রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পটির মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ১।
মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) অবশ্য ভূমিকম্পের মাত্রা ৫ দশমিক ৯ রেকর্ড করেছে।
২০০২ সালের পর আফগানিস্তানের সবচেয়ে প্রাণঘাতী ভূমিকম্পের ঘটনা এটি। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, ভূমিকম্পটির উৎপত্তি হয়েছে পাকিস্তান সীমান্তবর্তী দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ খোস্ত থেকে প্রায় ৪৪ কিলোমিটার দূরে।
ক্ষমতাসীন তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা এক বিবৃতিতে ভূমিকম্পে হতাহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ