বাংলার গেজেট আন্তজার্তিক ডেস্ক : কুয়েতে আবারও চালু হলো ফ্যামিলি ভিজিট ভিসা। করোনার কারণে দুবছর বন্ধ থাকার পর ফের এই ভিসা চালু হওয়ায় স্বস্তি জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
কুয়েতে প্রায় আড়াই লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় কর্মরত। এর মধ্যে প্রায় ৫ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি তাদের পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন দেশটিতে। তবে, ২০০৭ সাল থেকে কুয়েতে বাংলাদেশিদের জন্য ভিজিট ভিসা বন্ধ করে দেয় আবাসিক বিভাগ। পরে ২০১৯-এ তা চালু করা হলেও করোনার কারণে আবারও বন্ধ হয়ে যায়। এতে নিজেদের পরিবারকে বিদেশের মাটিতে আনার ইচ্ছে ও সামর্থ্য থাকলেও ভিসা জটিলতায় তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।
ঈদের আগে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ফ্যামিলি ভিজিট ভিসার বিষয়টি পর্যালোচনা করে কিছু বিধিনিষেধের আওতায় এটি পুনরায় চালুর উদ্যোগ নেয়। তবে এই ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রে করোনার ভ্যাকসিন নেওয়া থাকতে হবে। ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রত্যেকের একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন থাকতে হবে।
মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে পরিবারের সঙ্গে পুনরায় মিলিত হওয়ার জন্য, শিশু এবং স্বামী/স্ত্রীদের ভিজিট ভিসা দেওয়া হয়; কিন্তু এগুলো খুবই সীমিত সংখ্যক।
এদিকে ছুটিতে গিয়ে দেশে আটকেপড়া ৩ লাখ ৯০ হাজার প্রবাসীর রেসিডেন্স পারমিট বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। বিমানবন্দর বন্ধ থাকায় তারা আর ফিরে আসতে পারেননি।
নতুন করে ফ্যামিলি ভিজিট ভিসা চালু হওয়ায় খুশি প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
কর্তৃপক্ষ জানায়, ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্র বেশকিছু শর্ত যেমন: জাতীয় পরিচয়পত্র, বেতন ক্যাপ, নিরাপত্তা চেকসহ নানা বিষয় মানতে হবে। তবে ভিসাসংক্রান্ত যাবতীয় কাজ সহজ করার দাবি প্রবাসীদের।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ