মেহেরপুর প্রতিনিধি : সারাদেশের ন্যায় মেহেরপুরে অশনির প্রভাবে বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। তবে ঝড়ো হাওয়ার কোন প্রভাব নেই। ভারী বর্ষণে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিনা, খেলার মাঠসহ নিচু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। অনেকদিন পরে ভারি বৃষ্টি হওয়ায় যুবক ছেলেরা খেলার মাঠে জমে থাকা পানিতে খেলায় মেতে উঠে।
আজ বুধবার সকালে বেশ কিছু সময় ধরে ভারি বর্ষণের পর গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি অব্যাহত আছে। মাঝে মাঝে কালো মেঘ করে হঠাৎ হঠাৎ ঝুম বৃষ্টি হচ্ছে। বৈশাখ মাসের শেষের দিকে ঘূর্ণিঝড় অশনির প্রভাবে এমন বৃষ্টি হচ্ছে বলে জানিয়েছে চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া অফিস। এদিকে বৃষ্টির কারণে মানুষ ছাতা নিয়ে প্রয়োজনীয় কাজে বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে। তবে খেটে খাওয়া ও নিন্ম আয়ের মানুষরা পড়েছে ভোগান্তিতে।
মেহেরপুর উঁচু ভূমি হওয়ায় বেশি সময় পর্যন্ত পানি জমে থাকেনা। বৃষ্টি থেমে গেলেই পানি নদী, খাল, বিল বা নিচু ভূমিতে নেমে যায়। দীর্ঘদিন পর সমতল ভূমি, খেলার মাঠ স্কুল আঙ্গিনায় পানি জমে যাওয়ায় অনেক মানুষকে পানিতে নেমে আনন্দ করতে দেখা গেছে। ঘূর্ণিঝড় বা ঝড়ো হাওয়া হলে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হবার সম্ভাবনা ছিল। বৈশাখ মাস এমন বৃষ্টি ফসলের জন্য ভাল বলে মনে করছে চাষিরা। তবে অশনির প্রভাব শেষ না হওয়ায় এখনও ঝড়ো হাওয়া হবার আতঙ্কে আছেন চাষিরা।
মেহেরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, এখানে দীর্ঘদিন ধরে চাকরি করছি। এভাবে খেলার মাঠ বা স্কুল আঙ্গিনায় পানি জমতে দেখিনি। দুদিনে ব্যাপক ভারি বৃষ্টিপাতসহ গুড়ি-গুড়ি বৃষ্টি হওয়ায় এবার পানি জমে গেছে। মাঠে যে সকল ছেলেরা খেলাধূলা করে তাদের বৃষ্টির মধ্যে পানিতে নেমে খেলা করতে দেখা যাচ্ছে।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ