বাংলার গেজেট আন্তজার্তিক ডেস্ক : নদীর পাড়ে ভাসছে ময়লা-আবর্জনা, আর মানুষের ফেলে দেয়া নানা জিনিসপত্র। প্রথমে দেখে মনে হতে পারে, কোনো ময়লার ভাগাড়। তবে তা নয়, আদতে এটি একটি বাড়ি। নদীর ওপর ভাসতে থাকা এ বাড়ির দেখা মিলবে ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে।
প্রতিটি আসবাবই ফেলনা বা ময়লা-আবর্জনা থেকে বানানো। অদ্ভুত এ বাড়ি বানিয়েছেন ৫৫ বছর বয়সী লুইজ ফার্নান্দো ব্যারেটো। পাভুনা নামের নদীজুড়েই ময়লা-আবর্জনার স্তূপ। প্রতিদিনই নদীতে ময়লা ফেলেন স্থানীয়রা। তাই স্থানীয়দের সচেতন করতে তাদের ফেলে দেয়া জিনিসপত্র দিয়েই বাড়ি বানিয়েছেন এ ব্রাজিলিয়ান।
বাড়িটির মালিক লুইজ ফার্নান্দো ব্যারেটো বলেন, এই গ্রহে যদি সত্যিই কিছু মূল্যবান থাকে সেটা পানি। এটি হীরা কিংবা সোনার চেয়েও মূল্যবান। পানি ছাড়া মানুষের জীবন অচল।
নিজেকে দার্শনিক দাবি করা ফার্নান্দোর বাড়িটিতে আছে জীবন ধারণের প্রয়োজনীয় সবকিছুই। রাতে ঘুমানোর জন্য নৌকার ভেতর বিছানা। আছে সুইমিংপুল থেকে শুরু করে নোংরা পানিকে পরিষ্কার করার ব্যবস্থাও।
তিনি আরও বলেন, ভাবতেই ভালো লাগে আমার এই বাড়ির সবকিছুই পরিত্যক্ত জিনিস দিয়ে তৈরি। যা একসময় এই নদী দূষণের কারণ ছিল।
এ বাড়ি এরইমধ্যে নজর কেড়েছে স্থানীয়দের। আশপাশের এলাকা থেকেও অদ্ভুত বাড়িটি দেখতে আসছেন অনেকে। বাড়ির মালিকের আশা, দূষণ থেকে নদীটিকে বাঁচাতে ভূমিকা রাখবে তার বাড়ি।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ