চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : তিন মাস সাজা ভোগ করার পর চুয়াডাঙ্গার দর্শনা সীমান্ত চেকপোস্ট দিয়ে নিজ দেশে ফিরল প্রেমের টানে বাংলাদেশে আসা মনিরা।
প্রেমের টানে অবৈধ পথে বাংলাদেশে এসে বিজিবির হাতে আটক হন ভারতীয় তরুণী মনিরা এ ঘটনায় তাকে তিনমাসের সাজা দেন বাংলাদেশের আদালত। অবশেষে আজ চুয়াডাঙ্গার দর্শনা চেকপোস্ট দিয়ে নিজ দেশে ফিরেছেন।
আজ বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) দুপুর ১ টার দিকে আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের উপস্থিতিতে তাকে ভারতীয় পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
এসময় বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন দর্শনা চেকপোস্টের ইনচার্জ (এসআই) এস এম আব্দুল আলিম, দর্শনা থানার এসআই নীতিশ বিশ্বাস, দর্শনা বিজিবি চেকপোস্টের নায়েব সুবেদার আলাউদ্দিন ও মানবাধিকার কর্মী আতিয়ার রহমান। ভারতের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন নদীয়া জেলার কৃষ্ণগঞ্জ থানার পরিদর্শক বাবিন মুখার্জি, গেদে চেকপোস্টের ইমিগ্রেশন অফিসার ইন্সপেক্টর সন্দীপ তিওয়ারি, গেদে আইসিপির কোম্পানি কমান্ডার সুনীল পায়েল, কৃষ্ণগঞ্জেরর ডিআইও স্বাধীন মন্ডল ও মানবাধিকার কর্মী চিত্ত রঞ্জন দে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২০২০ সালের ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার মাটিলা সীমান্তে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে মনিরা খাতুনকে আটক করে বিজিবি। তিনি নদীয়া জেলার ধানতলা থানার চাঁদপুর গ্রামের আইয়ুব আলী বিশ্বাসের মেয়ে। পরে তাকে ৩ মাসের আটকাদেশ দেন ঝিনাইদহ নারী ও শিশু আদালতের বিচারক। আইনি জটিলতায় দীর্ঘদিন আটক ছিল সে। বাংলাদেশের ময়মনসিংহের এক ছেলের প্রেমের টানে ঝিনাইদহ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢোকার সময় মনিরাকে আটক করে বিজিবি।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ