বাংলার গেজেট প্রতিবেদক : সিএন্ডএফ এজেন্টস লাইসেন্সিং বিধিমালা-২০২০ সংশোধন করা না হলে বাংলাদেশের সকল কাস্টম হাউস ও শুল্ক স্টেশনে দুইদিন পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন।
আজ শনিবার (১১ জুন) রাজধানীর বেইলি রোডে সংগঠনটির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। আরও বলা হয়, ওই বিধিমালার কয়েকটি বিধি সংশোধনের দাবিতে ১৫ জুনের মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে চিঠি দেবে। তাতে ইতিবাচক কোনো অগ্রগতি না হলে এ মাসের ২৮ ও ২৯ তারিখ দেশের সকল কাস্টম হাউস ও শুল্ক স্টেশনে পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি পালন করবে সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীরা।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আমদানিকারকদের শুল্ক-করাদি বাকি থাকলে এর দায় সিএন্ডএফ এজেন্টদের ওপর চাপিয়ে লাইসেন্স নবায়ন না করা এবং উত্তরাধিকারীর অনুকূলে লাইসেন্স হস্তান্তরের বিষয়ে বিধি বাতিলের দাবি জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা। আর এ বিধিমালা নিয়ে প্রতিবাদও জানিয়েছে।
সভায় উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শামছুর রহমান, মহাসচিব সুলতান হোসেন খান, অর্থসচিব এ কে এম আকতার হোসেনসহ অনেক সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী।
উল্লেখ্য, এর আগে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সিএন্ডএফ এজেন্টস লাইসেন্সিং বিধিমালা-২০২০ সংশোধনসহ বিভিন্ন দাবিতে গত ৭ জুন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বেনাপোলসহ দেশের ১১টি শুল্ক স্টেশনে পণ্য খালাস কার্যক্রম বন্ধ রাখে সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীরা।
বাংলার গেজেট/এম এইচ