বাংলার গেজেট ডেস্ক : সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর খুলনায় বিভিন্ন সড়কে উন্নয়ন কর্মকান্ডের নামে ব্যাপক জনদুর্ভোগ এবং সড়ক দুর্ঘটনা বৃদ্ধি করছে।
সম্প্রতি খুলনা খানজাহান আলী বাইপাস সড়কে সড়ক দুর্ঘটনারোধে দশ ইঞ্চি ইটের গাথুনি দিয়ে নির্মান করা রোড ডিভাইডার এতই দুর্বল এবং ভঙ্গুর যে প্রতিদিনই কোন না কোন যানবাহনের ধাক্কায় তা ভেঙ্গে যাচ্ছে এবং সড়কে দুর্ঘটনার ঝুকি বাড়াচ্ছে। এর মাধ্যমে সরকারের অর্থ অপচয় করা হচ্ছে। সড়ক নিরাপত্তার কোন কাজই হচ্ছে না। অপর দিকে তাদের আরেক হটকারী সিদ্ধান্তে খানজাহান আলী বাইপাস সড়কের হাজার হাজার মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে এবং প্রতিদিন ছোট বড় দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। কেন-না তারা ডিভাইডারের মাঝের পথগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। রাস্তা পার হওয়ার জন্য প্রায় ৩ কি.মি. পথ ঘুরে যেতে হচ্ছে যার ফলে এলাকার মানুষ এবং যানবাহন উল্টোভাবে যাতায়াত শুরু করেছে। অথচ মহাসড়কগুলোতে অবৈধ স্থাপনা, ইট-বালু ব্যবসা তারা বন্ধ করতে পারছে না।
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র কেন্দ্রিয় কার্য্যকারী সদস্য ও খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব এবং সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মুন্না সহ সংগঠেন নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে, অবিলম্বে খুলনা সড়ক ও জনপথ (সওজ) এর এ ধরনের অপরিকল্পিত কর্মকান্ড বন্ধ করে একটি বাস্তবধর্মী টেকসই সড়ক উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা করতে হবে। মানুষকে নিরাপদে পথ চলার ব্যবস্থা করতে হবে। সড়কে যাতায়াত প্রতিবন্ধকতা কোনভাবেই কাম্য নয়। যে সকল রাস্তা পারাপারের পথ বন্ধ করা হয়েছে সে গুলো খুলে দিয়ে ট্রাফিক সাইন সিগন্যালের ব্যবস্থা করতে হবে। অপরিকল্পিত উন্নয়ন কর্মকান্ড বন্ধ করে সড়ক নিরাপত্তার বিষয়ে গুরুত্ত্ব দিতে হবে। সেই সাথে শেরে-বাংলা সড়কের নির্মান কাজ সম্পন্ন করতে হবে। অভিলম্বে সওজ এর সকল ধরনের অনিয়ম অপরিকল্পিত কর্মকান্ড এবং সরকারের অর্থ অপচয় বন্ধের দাবী জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ।
বাংলার গেজেট/ এম এইচ