বাংলার গেজেট আন্তজার্তিক ডেস্ক : বয়স পেরিয়েছে ৮০’র ঘর। তবু মনে দুরন্ত সাহস কেনিচি হোরির। তাই ৮৩ বছর বয়সেই একা পার করে ফেললেন প্রশান্ত মহাসাগর। একা প্রশান্ত মহাসাগর পার হওয়া প্রবীণতম ব্যক্তি হিসেবে রেকর্ড গড়েছেন কেনিচি। এর আগে ১৯৬২ সালে পৃথিবীর প্রথম অভিযাত্রী হিসেবে একা প্রশান্ত মহাসাগর পার করার রেকর্ড গড়েন তিনিই। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।
গত মার্চ মাসে যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো থেকে মাত্র ১৯ ফুট লম্বা সান্তরি মারমেড-৩ নামক একটি ইয়টে চেপে জাপানের উদ্দেশে রওনা দেন কেনিচি। প্রশান্ত মহাসাগর পার করে দেশে পৌঁছাতে তার সময় লেগেছে ৬৯ দিন।
তবে সহজ ছিল না যাত্রাপথ। যাত্রার শুরুতে প্রবল ঝড়ের মোকাবেলা করতে হয়েছে তাকে। এছাড়া জাপান উপকূলের কাছে তীব্র স্রোতের মুখেও পড়েন তিনি। সব চ্যালেঞ্জই সামলেছেন দক্ষ হাতে। সাথে বেশ কিছু ওষুধ নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলেন কেনিচি। তবে গোটা যাত্রায় শুধু চোখের ড্রপ আর ব্যান্ডেজ ছাড়া আর কোনো ওষুধের দরকার পড়েনি তার।
তার এই দুঃসাহসিক কর্মকাণ্ডের কথা জেনে জাপানের শিন নিশিনোমিয়া বন্দরে তার জন্য অপেক্ষা করছিলেন অসংখ্য মানুষ। কেনিচি বন্দরে পৌঁছাতেই উল্লাসে ফেটে পড়েন তারা। তবে এই ধরনের সাহসিকতা এই প্রথম দেখাননি প্রবীণ। ১৯৬২ সালে তিনিই পৃথিবীর প্রথম অভিযাত্রী হিসাবে একা প্রশান্ত মহাসাগর পার করার রেকর্ড গড়েন। ৬০ বছর পর পৃথিবীর প্রবীণতম মানুষ হিসাবে আবারও রেকর্ড গড়লেন কেনিচি। ১৯৭৪ সালে একটি ইয়াটে করে বিশ্বভ্রমণও করেছেন তিনি।
বাংলার গেজেট/এম এইচ